রাজনীতি একটা ইবাদত : শামীম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) শামীম ওসমান বলেছেন, ‘আমি মানুষের জন্য কাজ করে মানুষকে খুশি করে আল্লাহকে খুশি করতে চাই। রাজনীতি একটা ইবাদত। আপনি আপনার বাড়ির আঙ্গিনায় কাঁটাযুক্ত গাছ লাগাবেন, নাকি ফলের গাছ লাগাবেন তার সিদ্ধান্ত আপনার।’আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) ১০ নম্বর ওয়ার্ডে এক পথ সভায় এ সব কথা বলেন শামীম ওসমান।শামীম ওসমান বলেন, ‘সামনের নির্বাচনে আপনার এলাকার জনপ্রতিনিধি যদি ভালো না হয় বা আপনি মাদক ব্যবসায়ী বা অসৎ জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করলে ওই এলাকায় সন্ত্রাস হবে। মাদক ব্যবসা হবে।

তাহলে ওই এলাকার উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড হবে না। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে, তখন আপনার সন্তান অন্ধকারের দিকে পা দিবে। সুতরাং সামনের নির্বাচনে কাকে নির্বাচিত করবেন তার চয়েজ আপনার।’শামীম ওসমান আরও বলেন, ‘আপনারা যাচাই-বাছাই করে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করবেন। যেমন যাচাই-বাছাই আপনারা করে থাকেন, আপনাদের সন্তানদের বিয়ের সময়। আমার শরীর যদি হয় বাংলাদেশ, তবে ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ হচ্ছে আমার হৃদপিণ্ড। আমি যদি এবার নির্বাচিত হই, তবে আমি এই হৃদপিণ্ডটাকে হাতিরঝিলের থেকেও বেশি উন্নত এলাকা করে সাজাবো। যেনো মানুষ আমার এলাকাকে দেখতে আসে।’

Loading...

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, ‘কিছু প্রার্থী আসবে মসজিদে নামাজ পড়তে, এসে মসজিদের মধ্যে সবার সামনে অনুদান দিবে। ভোট চাইবে। কিংবা কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে সবাইকে দেখিয়ে টাকা দিবে। ভোট চাইবে। তাছাড়া এ প্রার্থীরা দরিদ্র লোকদের টাকা দিয়ে ভোট দেওয়ার জন্য কসম কাটাবে। তাই আপনাদের বলছি, আপনারা টাকার বিনিময়ে ঈমান বিক্রি করবেন না। আমার কর্মকাণ্ড সম্পর্কে আপনারা খবর নিবেন, আরেকজনের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে খবর নিবেন।’শামীম ওসমান আরও বলেন, ‘আমি আল্লাহকে ভয় পাই। পরিষ্কার কথা, টাকার বিনিময়ে আমি ভোট কিনমু না। কারণ, প্রবলেম আমার না।

প্রবলেম আপনার। আপনার বাচ্চার ভবিষ্যতকে আপনারই ঠিক করতে হবে। আপনাকে ভাবতে হবে, কোন বাংলাদেশ চান আপনি। আফগানিস্তান মার্কা নাকি সিঙ্গাপুর-মালয়েশিয়ার চেয়েও উন্নত বাংলাদেশ?’পথসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন মিয়া, নাসিক প্যানেল মেয়র মতিউর রহমান মতি, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এহসানুল হক নিপু, নাসিকের ১০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইফতেখার আলম খোকন, আওয়ামী লীগ নেতা মাহবুব হোসেন প্রমুখ।

Loading...