একই দিনে সাত প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরীক্ষা, ক্ষুদ্ধ চাকরিপ্রার্থীরা

শুক্রবার প্রায় একই সময়ে ৬টি আলাদা সরকারি প্রতিষ্ঠানসহ মোট সাতটি প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরীক্ষা থাকায় চরম বিপাকে পড়েছেন চাকরিপ্রার্থীরা। একই দিনে একাধিক নিয়োগের জন্য পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ায় তারা কোন পরীক্ষায় অংশ নেবেন আর কোনটা বাদ দেবেন তা নিয়ে মানসিক চাপে তো ছিলেনই, পাশাপাশি দ্বিধাগ্রস্থও ছিলেন। ফলে চাকরির ফরম পূরণ করেও তারা পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেননি। এতে অনেকের গচ্চা যায় হাজার হাজার টাকা।

জানা যায়, শুক্রবার প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ, সোনালী ব্যাংক, গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি, জীবন বীমা করর্পোরেশনসহ অন্তত সাতটি প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এসব পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় প্রায় একই সময়ে। তাই
একাধিক পরীক্ণার জন্য ব্যাংক ড্রাফট করেও মাত্র একটিতে অংশ নিতে নিতে হয়েছে চাকরিপ্রার্থীদের।

Loading...

চাকরিপ্রার্থীদের মতে, একটি চাকরিতে আবেদন করতে গেলে আবেদনপত্রের সঙ্গে ন্যূনতম ৫০০ টাকা থেকে ৭০০ টাকা পর্যন্ত ব্যাংক ড্রাফট, পে-অর্ডার অথবা অনলাইনে ফি পরিশোধ করতে হয়। তারপর আবার পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ঢাকায় যাতায়াতের খরচ। ভাগ্য বদলানোর আশায় নিম্নবিত্ত এবং নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তানরা কষ্টে টাকা সংগ্রহ করে হলেও পরীক্ষায় অংশ নেয়। কিন্তু সেখানে একই দিনে এতগুলো প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরীক্ষা সত্যিই মেনে নেয়ার মত নয়।

কয়েকজন অভিযোগ করে বলেন, কখনো কখনো দীর্ঘ দুই-তিন মাসের মধ্যেও কোনো পরীক্ষার তারিখ পড়ে না। অথচ, হঠাৎ করেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ একই দিনে একই সময়ে কয়েকটি পরীক্ষা সম্পন্ন করার ঘোষণা দেয়। এটা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার দুরভিসন্ধী ছাড়া অন্য কিছুই হতে পারে না বলে মন্তব্য করেন তারা।

এদিকে, আগামী ২৭ এপ্রিলও একই দিনে একই সময়ে তিতাস গ্যাস, সোনালী ব্যাংকসহ আরও কয়েকটি সরকারি নিয়োগ পরীক্ষা হবে। ফলে আবারও একই সমস্যায় পড়তে যাচ্ছেন নিয়োগ প্রত্যাশীরা।

Loading...