৫ এর মধ্যে ৭ দিলেন ঢাবি শিক্ষিকা, ২১ জনকে শূন্য! পড়ুন বিস্তারিত-

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের এক শিক্ষিকা ক্লাস উপস্থিতিতে একজন শিক্ষার্থীকে পূর্ণমার্ক ৫ নাম্বার এর মধ্যে ৭ নাম্বার দিয়েছেন।

বিভাগের তৃতীয় বর্ষের পঞ্চম সিমেস্টারের ‘অর্থনৈতিক প্রক্রিয়া ও প্রতিষ্ঠান’ নামক কোর্সে এমন ঘটনা ঘটেছে। ওই কোর্সের শিক্ষিকা বিভাগের প্রভাষক আমেনা থাতুন রিংকি ওই শিক্ষার্থীকে এমন নাম্বার দিয়েছেন বলে জানা যায়। এছাড়া ২১ জন শিক্ষার্থীকে উপস্থিতিতে কোনো নাম্বারই দেননি তিনি।

বিভাগের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ওই শিক্ষিকা ক্লাস উপস্থিতি গণনা না করে অনুমান নির্ভর হয়ে নম্বর দিয়েছেন। তারা ক্লাসে উপস্থিত থেকেও উপস্থিতির নম্বর পাননি। এছাড়াও ওই কোর্সের সহকারী শিক্ষক আবদুল খালেকের ক্লাস উপস্থিতি গণনা করেননি বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীরা শিক্ষার্থীদের। এ বিষয়ে তারা বিভাগের চেয়ারম্যান বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিবেন বলে জানান।

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি শিক্ষার্থীদেরকে শিট দেখে দেখে ক্লাসে লেকচার প্রদান করেন। এছাড়া নির্দিষ্ট সময়সূচি অনুযায়ী ক্লাস নেওয়ার কথা থাকলেও বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে তিনি অর্ধেক ক্লাস নিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

অভিযুক্ত শিক্ষক আমিনা খাতুন রিংকি বলেন, প্রিন্টিং মিসটেকের কারণে এটা হয়েছে। এটার সংশোধনীর সুযোগ আছে। যেসব সমস্যা হয়েছে ঠিক করা হবে।

বিভাগের চেয়ারপারসন অধ্যাপম মফিজুর রহমান বলেন, শিক্ষার্থীদের দেখানোর জন্য এই ফলাফলটা দেয়া হয়। এখানে সংশোধনের সুযোগ আছে। তারা যেসব অভিযোগগুলো করে তা সংশোধন করা হবে।