র‌্যাবের কাছ থেকে ছাড়া পেলেন ইমরান এইচ সরকার

শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে বিকেল ৪টার দিকে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে গ্রেফতার করা হয়। র‌্যাব তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেয়। আজ ৪টার দিকে গ্রেফতারের পর র‌্যাব ইমরান এইচ সরকারকে আজ রাত ১১টার দিকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দিয়েছে র‌্যাব। বুধবার বিকেলে শাহবাগ থেকে গ্রেফতারের পর রাত ১১টার দিকে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

Loading...

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান সমকালকে এতথ্য জানিয়েছেন।

বিকেল ৪টার দিকে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন গণজাগরণ মঞ্চের নেতাকর্মীরা। সাড়ে ৪টার দিকে ওই এলাকায় যান ইমরান এইচ সরকার।

এক পর্যায়ে সাদা পোশাকের ৮-৯ জনের একটি দল মাইক্রোবাসে তাকে জোরপূর্বক তুলে নেওয়ার চেষ্টা করেন। আগে থেকেই গণগ্রন্থাগারের সামনে অবস্থান করছিল ওই মাইক্রোবাসটি।

তাকে মাইক্রোবাসে তোলার সময় গণজাগরণ মঞ্চ ও ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা বাধা দেন। এর পরই সাদা পোশাকের সদস্যরা ‘র‌্যাব’ লেখা একটি কাগজ সাঁটিয়ে দেয় তাদের মাইক্রোবাসে। ‘একটু যেতে হবে’ বলে ইমরানকে মাইক্রোবাসে তুলে নেন র‌্যাবের সদস্যরা।

এ সময় গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা বাধা দিতে গেলে র‌্যাব সদস্যরা তাদের লাঠিপেটা ও ধাওয়া দেন। গণজাগরণ মঞ্চের পাঁচ কর্মী আহত হন তখন।

র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ এমরানুল হাসান সমকালকে তখন বলেন, আগে অনুমতি না নিয়ে অবৈধভাবে জনসমাবেশ করছিলেন ইমরান এইচ সরকার। র‌্যাব সদস্যরা তার সঙ্গে কথা বলতে গেলে গণজাগরণ মঞ্চের লোকজন র‌্যাবের ওপর আক্রমণ করে। এ সময় ইমরানসহ তার লোকজন সরকারি কাজে বাধা দেন। এর পরই গ্রেফতার করা হয় তাকে।

বিকেল ৪টার দিকে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে থেকে গ্রেফতার করতে গেলে গণজাগরণ মঞ্চ ও ছাত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা বাধা দেন। র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ এমরানুল হাসান সমকালকে তখন বলেন। তাকে গ্রেফতার করে আনতে গেলে তারা র‌্যাবের ওপর আক্রমণ করে। তাই  এর পরই গ্রেফতার করা হয় তাকে। তাই রাত ১১টার দিকে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

Loading...