বগুড়ায় যৌতুকের টাকা না দেয়ায় ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে ‘স্ত্রীর নগ্ন ছবি ছড়ালো স্বামী’!

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় গোসাইবাড়ি গ্রামের রফিকুল ইসলাম রাঙ্গার ছেলে রাসেল বাবু রুমনের সঙ্গে একই গ্রামের মৃত. ফজলুল হকের মেয়ের জান্নাতুল নাঈমের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

এক পর্যায়ে সম্পর্কের সূত্র ধরে বিয়ের জন্য প্রেমিকযুগল বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে ২০১৭ সালের ১৭ ডিসেম্বর রাসেল বাবু রুমন ও জান্নাতুল নাঈম বিয়ে করেন। বিয়ের পর রাসেল বাবু স্ত্রীকে নিয়ে নিজ বাড়িতে ফিরে আসলে তার মা-বাবা মেনে নিতে রাজি হয়নি। এ বিষয় নিয়ে উভয় পরে মধ্যে সমঝোতার বৈঠক করেও কোনো কাজ হয়নি। এ অবস্থায় রাসেল বাবু তার স্ত্রীর কাছে ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন।

যৌতুকের টাকা পেলে তার মা-বাবাকে বুঝিয়ে স্ত্রীকে ঘরে তুলবে বলে জানায় রাসেল বাবু। কিন্ত স্ত্রী জান্নাতুল নাঈমের দরিদ্র বিধবা মায়ের পক্ষে এতো টাকা পরিশোধ করা সম্ভব হয়নি। এতে রাসেল বাবু ও তার পরিবারের লোকজন ২৫ জুন নববধূকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়।

এ ঘটনায় জান্নাতুল নাঈম বাদি হয়ে ২৮ জুন বগুড়া জেলার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এ মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় স্বামী, শ্বশুর ও শ্বাশুড়িসহ ৪ জনকে আসামি করা হয়। আদালত মামলাটি তদন্তের জন্য উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তাকে তদন্তের নির্দেশ দেন।

এদিকে আদালতে মামলা দায়েরের খবর পেয়ে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। জান্নাতুল নাঈমকে আদালত থেকে মামলা প্রত্যাহার করে নিয়ে যৌতুকের টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করে রাসেল বাবু। কিন্ত এ প্রস্তাবে সাঁড়া না পেয়ে জান্নাতুল নাঈমের নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খোলে রাসেল বাবু।

সেই ফেসবুক আইডির মাধ্যমে জান্নাতুল নাঈমের গলাকাটা ছবি অন্য মেয়ের নগ্ন ছবির সাথে যুক্ত করে ফেসবুক ও ইন্টারনেটে ছেড়ে দিয়েছে রাসেল বাবু।

এ ঘটনায় জান্নাতুল নাঈমের বিধবা মা বাদী হয়ে ১০ জুলাই বগুড়া আদালতে রাসেল বাবু রুমনের বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি এবং পর্নগ্রাফী নিয়ন্ত্রণ আইনে আরও একটি মামলা দায়ের করেন।