প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসম্যান হচ্ছেন রশিদা

বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসম্যান হতে যাচ্ছে বলে জানিয়ে আলজাজিরা বলছে, মিশিগানের ডিস্ট্রিক ১৩-এর প্রাইমারির নির্বাচনে ডেমোক্রেটদের মনোনয়ন পেয়েছেন তিনি।

এই আসনে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দল রিপাবলিকান পার্টি কিংবা তৃতীয় কোনো দলের প্রার্থী না থাকায় নভেম্বরের নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন তিনি। দুই বছরের জন্য তিনি নির্বাচিত হবেন, যার হিসাব শুরু হবে জানুয়ারি থেকে।

Loading...

তার বিজয়ের বিষয় নিয়ে ডেট্রয়েট ফ্রি প্রেসের বরাত দিয়ে এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মঙ্গলবারের প্রাইমারি নির্বাচনে তিনি ৩৩ দশমিক ৬ শতাংশ ভোট পেয়েছেন। আর তার কাছের প্রতিদ্বন্দ্বী ব্রেন্ডা জোন্স পেয়েছেন ২৮ দমশিক ৫ শতাংশ ভোট।

প্রসঙ্গত, এই আসনটি ১৯৬৫ সাল থেকে জন কোনিয়ার্সের দখলে ছিল। যৌন নিপীড়নের অভিযোগের মুখে গত ডিসেম্বরে তিনি পদত্যাগের ঘোষণা দিলে আসনটি শূন্য হয়।

ফিলিস্তিনি বংশোদ্ভূত রশিদা তালিব প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসম্যান নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। ডেমোক্রেট দল থেকে মনোনয়ন পেয়ে কংগ্রেস সদস্য নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন তিনি।৪২ বছর বয়সী রশিদা এক ফিলিস্তিনি অভিবাসীর মেয়ে। তিনি মিশিগান রাজ্যের সাবেক আইনপ্রণেতা।

তালিব বলেন, ‘নির্বাচন করা আমার জন্য ইতিহাস হবে সেজন্য আমি নির্বাচনে অংশ নেয়নি। বরং অবিচার এবং আমার সন্তানদের পরিচয় প্রশ্নের মুখে পড়ায় আমি নির্বাচনে অংশ নিয়েছি।’

তাই জয়ী হওয়ার নিয়ে বুধবার টুইটারে রশিদা লিখেছেন, ‘এই অবিশ্বাস্য মুহূর্ত তৈরির জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। আমি ভাষা হারিয়ে ফেলছি। কংগ্রেসে আপনাদের সেবা করার জন্য আমি বিলম্ব করব না।’

এর আগে চলতি সপ্তাহে রশিদা তালিব এবিসি নিউজকে বলেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হবার পর থেকে আমেরিকান মুসলিম ও অভিবাসীদের প্রতি নানা নির্যাতন ও অন্যায় বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটেই তিনি নির্বাচনের লড়ার সিদ্ধান্ত নেন।

Loading...