ভাইয়ের ছেলের সঙ্গে পালিয়ে গেলো তিন সন্তানের জননী সাজিয়া!

অনেক আশা-স্বপ্ন নিয়ে দুজন মানুষ একসঙ্গে পথচলা শুরু করে। সেই পথচলা সবসময় মসৃণ হয় না। অনেক ক্ষেত্রেই দুজনের সম্পর্ক এমন এক অবস্থায় এসে দাঁড়ায় যাতে বিচ্ছেদই হয়ে উঠে একমাত্র সমাধান।

এতদিন মুসলিম মহিলাদের ইচ্ছামতো তালাক দিতেন পুরুষরা কিন্তু সম্প্রতি ভারতের হরিয়ানায় যা ঘটল সেটা সম্পূর্ণ উল্টো।এবার এই ‘কুপ্রথার’ শিকার হলেন এক মুসলিম পুরুষ৷ শুধু তাই নয়, স্বামীকে তালাক দিয়ে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যান স্ত্রী৷তিন সন্তানের মা সাজিয়া তাঁর স্বামী আব্বাসকে তিন তালাক দেন৷

Loading...

একটি চিঠিতে সাজিয়া তিন বার তালাক লিখে স্বামী আব্বাসের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ করেন৷ এই বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য স্বামীকেই দায়ী করেন তিনি৷জানান, বিয়ের পর থেকে স্বামীর অত্যাচার শুরু৷ প্রতিদিন মদ্যপ অবস্থায় বাড়ি ফিরে তাঁকে মারধর করত আব্বাস৷ তাই বাধ্য হয়ে স্বামীকে তালাক দিলেন তিনি৷ চিঠি লিখে এ কথা জানান সাজিয়া৷ পাশাপাশি তিনি বলেন, স্বেচ্ছায় তিনি আব্বাসকে তালাক দিলেন৷

কেউ এর জন্য দায়ী নয়৷ জানা গিয়েছে, অবিবাহিত এক ভাইয়ের ছেলের সঙ্গে পালিয়ে গিয়েছেন সাজিয়া৷এদিকে সাজিয়ার দেওয়া তালাকের বৈধতা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন৷ কেননা গত বছর ভারতের সুপ্রিম কোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে তাৎক্ষণিক তিন তালাককে অবৈধ বলে ঘোষণা করেছে৷ তারপর শীর্ষ আদালতের নির্দেশে মুসলিম তালাক বিরোধী বিল নিয়ে আসে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার৷ বিলটি লোকসভায় পাশ হলেও ঝুলে থাকে রাজ্যসভায়৷

Loading...