এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ, পাশ ৪০৬৮ জন! জানুন বিস্তারিত….

স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, এবারের ভর্তি পরীক্ষায় ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে মোট ১৯টি কেন্দ্রের ২৭টি ভেন্যুর ৮১৪টি কক্ষে ১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্রে এমবিবিএস প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

এবার ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য মোট ৬৫ হাজার ৯১৯ জন শিক্ষার্থী ভর্তি ফরম সংগ্রহ করেছিল। তবে শুক্রবারের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ৬৩ হাজার ৩২ জন।

Loading...

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ ও পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) রোববার (৭ অক্টোবর) দুপুরে ফলাফল প্রকাশের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

চলতি বছরের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। জাতীয় মেধাতালিকার ভিত্তিতে সরকারি ৩৬টি মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছেন ৪ হাজার ৬৮জন পরীক্ষার্থী। অপেক্ষমান তালিকায় রাখা হয়েছে ৫০০ জনকে।

১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্রের ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত সর্বোচ্চ নম্বর ৮৭ ও সর্বনিম্ন ৫৭।

সরকারি এবং বেসরকারি মেডিকেল কলেজে মোট আসন সংখ্যা ১০ হাজার ৩০০টি

উল্লেখ্য, ১০০ নম্বরের নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নপত্রে নেয়া পরীক্ষায় পাস নম্বর ৪০। ৪০ নম্বর পেয়ে সরকারি ও বেসরকারি উভয় মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য নির্বাচিত হয়েছেন ২৪ হাজার ৯৬৮ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ জানান, জাতীয় মেধাতালিকার ভিত্তিতে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের কাছে এসএমএসের মাধ্যমে ফল স্বল্পতম সময়ে পৌঁছে যাবে। এ ছাড়া স্বাস্থ্য অধিদফতরের ওয়েবসাইট থেকে ফল জানা যাবে।

গত শুক্রবার পরীক্ষার পর স্বাস্থ্য মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ গণমাধ্যমকে জানান, আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ফল প্রকাশিত হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক কর্মকর্তা জানান, গত বছরের চেয়ে এ বছর পরীক্ষার উত্তরপত্রের সংখ্যা কম হওয়া ও পরীক্ষার দিন (শুক্রবার) রাত ১২টার আগেই সব উত্তরপত্র স্বাস্থ্য অধিদফতরে এসে পৌঁছানোর ফলে ওএমআর মেশিন কাজ দ্রুত শুরু করা গেছে। ফলে স্বাস্থ্য মহাপরিচালকের বেঁধে দেয়া ৭২ ঘণ্টার মধ্যেই ফল প্রকাশ করা সম্ভব হবে বলেও জানান তিনি।

Loading...