‘তিতলি’তে বিধ্বস্ত একের পর এক গ্রাম

যতটা আশঙ্কা করা হয়েছিল, বাস্তবে তার ভয়াবহতা আরও বেশি। আবহাওয়া অফিস বলছে, ২০১৩ সালের পর ওড়িশা উপকূলে আছড়ে পড়া সবচেয়ে ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় তিতলি। জি২৪ নিউজের প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসছে।

তিতলি প্রভাবে লণ্ডভণ্ড ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের একের পর এক গ্রাম। উপড়ে পড়ল গাছ, ভেঙে পড়ল ল্যাম্পপোস্ট। মূলত ভারতের ওড়িশা ও অন্ধ্রপ্রদেশে তিতলির প্রভাব পড়েছে মারাত্মক।

Loading...

অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীকাকুলামের একাধিক গ্রামে ঘূর্ণিঝড়ে বিধ্বস্ত। শ্রীকাকুলাম ও পলাসার মাঝে আছড়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড়টি। ঝড়ের গতিবেগ বেড়ে ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার।

অন্ধ্র-ওড়িশা উপকূলে মুষুলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। ওড়িশার রঞ্জাম গজপতি ও জগত্সিংপুরে প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে। ঝড়ের গতিবেগ এতটাই বেশি ছিল যে, ছাদ থেকে জলভর্তি ট্যাঙ্ক উড়ে পড়েছে।

অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীকাকুলামে একটি পেট্রোল পাম্পে আগুন ধরে যায়। ভুবনেশ্বরে বাড়িল হয়েছে রেলের পরীক্ষা। আগামী দু’দিন ওড়িশার সবকটি স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন।

স্থানীয় গোপালপুর ও বেরহামপুরের সঙ্গে সড়কপথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। রেলের দক্ষিণ-পূর্ব শাখার একাধিক জায়গায় ছিড়ে গিয়েছে ওভারহেড তার। ওড়িশা, অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে বাতিল করা হয়েছে একাধিক ট্রেন।

তিতলি মোকাবিলায় কী পদক্ষেপ করা উচিত, সে বিষয়ে ওড়িশা ও অন্ধ্রপ্রদেশের প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকে বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

Loading...