ফুল হাতে মাঠে ঢুকে সাকিবকে কী বলেছিলেন সে দর্শক?

আফগানিস্তান ইনিংসের ১০৭তম ওভার, দিনের ১১তম। মিডিয়া প্রান্ত থেকে দিনে প্রথমবারের মতো বোলিংয়ে আসলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তখনই ঘটে গেলো অনাকাঙ্ক্ষিত এক ঘটনা।

প্রতিপক্ষ অধিনায়ক রশিদ খানকে আউট করার পরিকল্পনা নিয়ে ওভারের তিনটি বল করেন সাকিব। এরপরই থেমে যেতে হয় তাকে। কেননা ইস্টার্ন গ্যালারির কাঁটাতারের বেড়া টপকে মাঠের মধ্যে ঢুকে যান এক দর্শক। তবে তিনি কোনো ক্ষতিকর কিছু করেননি।

বরং টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের জন্য ভালোবাসার উপহার হিসেবে ছোট্ট একটি ফুলের তোড়া হাতে নিয়েই মাঠে প্রবেশ করেন ওই পাগল ভক্ত। সাকিব তখন চতুর্থ বল করার জন্য প্রস্তুত হচ্ছিলেন, কিন্তু তাকে থেমে যেতে হয় অনাকাঙ্ক্ষিত অতিথির আগমনে।

উইকেটের কাছাকাছি এসে প্রথমে সাকিবকে স্যালুট দেন সে দর্শক। পরে হাতে থাকা ফুল দিয়ে হাঁটু গেড়ে সাকিবকে ভালোবাসা জানান। প্রথম দফায় ফুল নিতে অস্বীকৃতি জানান সাকিব। পরে অনুরোধের কারণে নিতে বাধ্য হন তিনি।

এরপর হাত মিলিয়ে প্রিয় খেলোয়াড়কে জড়িয়ে ধরেন ফয়সাল নামের সে যুবক। ঘটনার প্রায় ২৫-৩০ সেকেন্ড পর গ্র্যান্ডস্ট্যান্ড থেকে দৌড়ে আসেন দুই নিরাপত্তাকর্মী এবং টেনে হিঁচড়ে বের করে দেন সেই সমর্থককে।

এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় প্রশ্ন ওঠে স্টেডিয়ামের নিরাপত্তা নিয়ে। ঘটনায় নিজেদের ব্যর্থতার কথা স্বীকার করে নেন বিসিবি নিরাপত্তা কমিটির প্রধান অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল হোসেন ইমাম। তিনি এও জানান যে, যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে সে যুবকের বিরুদ্ধে।

কিন্তু এতেই কি শেষ হয় সকলের জানার আগ্রহ? সবার মনে ঘুরতে থাকে প্রশ্ন, হাঁটু গেড়ে ফুল দেয়ার সময় সাকিবকে কী বলছিলেন সে যুবক? কেনোই-বা প্রথমবারে ফুল নিতে চাননি সাকিব? উত্তর পাওয়া গিয়েছে সাকিবেরই কণ্ঠে।

দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে এ ঘটনার ব্যাপারে সাকিব বলেন, ‘ফুল দেয়ার সময় শুধু নিতে বলেছে। আমি ভাবলাম যে বিয়ের প্রস্তাব কি-না! তবে আমি চাই না যে এমন কিছু হোক। আমাদের খেলার মাঠে এমন জিনিস যত কম, মানে কম না, আসলে না হওয়াটাই বেস্ট।’